বিজয়ের মাস

কিভাবে জানবেন আপনার সিমটি বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন হয়েছে কি না








যারা সিম নিবন্ধন করেছেন তারা কি নিশ্চিত ভাবে জানতে পেরেছেন যে আপনার সিমটি সফলভাবে নিবন্ধিত হয়েছে। নাকি দোকানে বা কাস্টোমার কেয়ারের লোকদের কথা শুনে নিশ্চিত হয়েছেন? না, আপনার সিমটি নিবন্ধন করার পরও কিন্তু সেটি সফল নাও হতে পারে। তাই চলুন জেনে নিই আপনার প্রিয় সিমটির নিবন্ধন সফল হয়েছে কিনা?

কিভাবে জানবেন গর্ভস্থ শিশুটি ছেলে না মেয়ে






মায়ের গর্ভের যে শিশুটি আছে তা ছেলে না কি মেয়ে হবে এ নিয়ে সবারই প্রায় কৌতূহল জাগে। মা-বাবারও জানার আগ্রহের কমতি থাকে না। তাই আজকে এই বিষয় নিয়ে একটু আলোচনা করছি। আমরা কিছু বিষয় নিয়ে ভেবে একটু চেষ্টা করলে আগেই জানতে পারব।

অনেক মা আছেন যারা একটু চালাক তারা তাদের গর্ভের সন্তান সম্পর্কে আলট্রাসনোগ্রাম করার আগেই জানতে পারেন। কিন্তু কীভাবে সেটা সম্ভব হয়, আজকে আপনারা তা জেনে নিন-

কিভাবে youtube থেকে সহজে ভিডিও ডাউনলোড করবেন







ইউটিউব থেকে টপাটপ গান বা ভিডিও ডাউনলোড করতে পারছেন না ? ডাউনলোডার দিয়ে ডাউনলোড দিতে সময় ব্যয় করতে হচ্ছে ?
তবে আর নয়, এখন অনেক সহজেই ডাউনলো়ডার ছাড়া আপনি গান বা ভিডিও মুহূর্তেই ডাউনলোড করতে পারবেন। কিন্তু কী ভাবে ? আসুন জেনে নিই।

১। প্রথমে ইউটিউবে যান। সেখানে আপনার পছন্দের গান বা ভিডিও সার্চ করে ওপেন করুন।

কিভাবে You Tube থেকে আয় করা যায়







অনলাইনে ঘরে বসে আয় করার অনেক উপায় আছে। আজকে দেখাবো কিভাবে YouTube এ ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় করা যায় । আপনিও খুব সহজেই YouTube থেকে টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

কিভাবে ভিডিও বানাবেন:

আপনি দুইটি উপায়ে ভিডিও বানাতে পারবেন।
প্রথম: ভিডিও ক্যামেরা দিয়ে ভিডিও তৈরি,

দ্বিতীয়: কম্পিউটারের সাহায্যে বিভিন্ন ভিডিও Editing সফটওয়ার এর মাধ্যমে ভিডিও তৈরি।

কিভাবে পায়ের পাতার দুর্গন্ধ দূর করবেন






কর্মক্ষেত্র থেকে শুরু করে স্কুল কলেজ সর্বত্রই অনেকে অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে পড়েন পায়ের গন্ধের জন্য ৷ পা-ঢাকা জুতো অর্থাৎ সু পড়ে কিছু বিশেষ জায়গায় যেতেই হয় আমাদেরকে ৷ আর সেখানেই বাঁধে সমস্যাটা ৷ এই জুতোর গন্ধে অনেকেই কাছে ঘেসতে চায়না ৷ আর এই পরিস্থিতি লজ্জারও কারণ হয়ে দাঁড়ায়৷ মূলত যাঁদের পা ঘামে তারাই বেশি এই সমস্যার মুখোমুখি হয়।
কিন্তু এর থেকে আমরা মুক্তি পেতে পারি সহজেই ৷ আসুন জেনে নেই পায়ের পাতার গন্ধ দূর করার কিছু কৌশল -

রাসায়নিক ভাবে পাকানো ফলমূল কিভাবে চিনবেন





বাজার ছেয়ে গিয়েছে পাকা আম, লিচু ও নানান ধরণের গ্রীষ্মকালীন ফলে। কিন্তু একটু লক্ষ্য করলেই দেখবেন যে তার স্বাদ নেহাতই পানসে। বলতে গেলে কোন রকম স্বাদ-গন্ধই যেন নেই। পাকা আম, কাঁঠাল, লিচুর গন্ধে মৌ মৌ করবে চারপাশ, তাই না? কিন্তু আজকাল ফলে যেন কোনো ঘ্রানই নেই। এমনকি কলা বা পেঁপের মত সস্তা ফলের ক্ষেত্রেও একই হাল।
কি সুন্দর পাকা পেঁপে। কিন্তু কাটার পরে দেখা গেল ভিতরটা বিশ্রী রকমের কাঁচা। পাকা কলার খোসা ছাড়িয়ে কামড় বসাতেই টের পাওয়া গেল কলা মোটেই পাকেনি। এর পেছনে কারণ কী, আপনি জানেন?

কিভাবে আপনার বাসা থেকে টিকটিকি তাড়াবেন





আমাদের খুব পরিচিত একটি প্রাণীর নাম হচ্ছে ‘টিকটিকি’। প্রায় সব বাসাতে এটি দেখতে পাওয়া যায়। ঘরের সব স্থানে এর অবাধ বিচরণ। এটি আপনার প্রত্যক্ষভাবে কোন ক্ষতি না করলেও পরোক্ষ ভাবে ক্ষতি করে থাকে। এর মল মূত্র বিষাক্ত এবং তা কোনোভাবে আমাদের খাবারের সাথে মিশে গেলে ডায়রিয়া কিংবা পেটের অসুখ হতে পারে।
এছাড়া এর উপস্থিতি বিরক্তি আর অস্বস্তি ছাড়া আর কিছুই দেয় না।
তাই বিরক্তিকর এই প্রাণীটিকে ঘর থেকে চিরতরে বিদায় করার সহজ কিছু উপায় নিয়ে আজকে আপনাদের সামনে হাজির হলাম।

১। ডিমের খোসা: টিকটিকি দূর করার সহজ এবং কার্যকরী একটি উপায় হল ডিমের খোসা। টিকটিকি ডিমের গন্ধ পছন্দ করে না। এর গন্ধ তাকে মানসিকভাব দূর্বল করে দেয়। টিকটিকি আসার জায়গাগুলোতে ডিমের খোসা রেখে দিন।দেখবেন টিকটিকি আসা বন্ধ হয়ে গেছে। কিছুদিন পর পর ডিমের খোসা পরিবর্তন করুন।

২। ন্যাপথালিন: কাপড় পোকার হাত থেকে রক্ষা করার জন্য ন্যাপথালিন ব্যবহার করা হয়। এই ন্যাপথালিন দূর করে দিবে ঘরের টিকটিকি! টিকটিকি আসার স্থানগুলোতে ন্যাপথালিন রেখে দিন। এটি ঘরে টিকটিক আসা বন্ধ করে দিবে। শুধু টিকটিকি নয় সাথে আরও কিছু পোকা আসাও বন্ধ হবে।

৩। রসুন: একটি বড় রসুনের কোয়া কুচি করে পানিতে মিশিয়ে নিন। এবার এটি স্প্রে বোতলে ভরে ফেলুন। টিকটিকির উপর স্প্রে করুন এই পানিটি। অথবা ঘরে যেসব স্থানে টিকটিকি আসা যাওয়া করে সেসব স্থানে রসুনের কোয়া রেখে দিন। এমনকি রসুনের খোসাও রেখে দিতে পারেন।

৪। ঠান্ডা পানি: টিকটিকি শীতল রক্তের প্রাণী। টিকটিকি দেখলেই বরফপানি স্প্রে করে দিন। বরফ ঠাণ্ডা পানির ফলে টিকটিকির শরীর অনেক বেশী ঠাণ্ডা হয়ে যায় যার কারণে টিকটিকি নড়াচড়া করতে পারে না। আর তখন একটি বক্সের ভেতরে ঢুকিয়ে বাইরে ফেলে দিন।

৫। ময়ূরের পালক: কোন এক অদ্ভুত কারণে টিকটিকি ময়ূরের পালক ভয় পায়। ঘরের ফুলদানিতে কয়েকটি ময়ূরের পালক রেখে দিন। কিংবা ঘরের দেয়ালে কয়েকটি পালক লাগিয়ে রাখতে পারেন। এটি ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করার সাথে সাথে টিকটিকিকে দূর করে দিবে।

ঘর থেকে টিকটিকি দূর করুন, সুস্থ থাকুন ভালো থাকুন।

কিভাবে Android Phone এর RAM বাড়াবেন




আজকে যে বিষয়টি শেয়ার করবো তার মাধ্যমে আপনি আপনার মোবাইলের RAM প্রায় দ্বিগুণ থেকে তিনগুণ বাড়িয়ে নিতে পারবেন । ফলে আপনার মোবাইল এর গতি অনেক বেড়ে যাবে, আপনি অনেক বড় বড় এপ্স ইন্সটল করতে পারবেন।
এই পদ্ধতিতে RAM বাড়ানোর জন্য আপনার ডিভাইস Swap File Supported হতে হবে, না হলে RAM বাড়ানো যাবে না।

RAM বাড়ানোর জন্য যা যা লাগবেঃ
১ টি Class 8/10 Micro SD Card,
Busy Box Pro,
RAM Expender,
তবে অবশ্যই আপনার ডিভাইসটি Root করা হতে হবে।

♣ প্রথমে Busy Box Pro অ্যাপটা ডাউনলোড করে আপনার ডিভাইসে ইন্সটল করে Open করুন। Open হবার পর Install লেখা অপশন পাবেন, সেখানে টাচ করুন।
♣ এরপর Install Type অপশন থেকে Normal Install এ ক্লিক করুন,
♣ Super User Permission চাইলে Grant/Accept করুন।
♣ Install করা শেষ হলে বের হয়ে আসুন ।
♣ এখন Ram Expender ডাউনলোড করে ইন্সটল করুন এবং ওপেন করুন।
♣ Super User Permission চাইলে Grant/Accept করুন।

ধাপ-১:
এখানে Swap File লেখা অপশনে ক্লিক করুন, একটা বক্স আসবে। এখানে কত MB RAM বাড়াতে চান তা লিখুন।

আপনার সেটে যা RAM দেয়া আছে তার সমান হলে ভাল হয়, খুব বেশি হলে দ্বিগুন করতে পারেন কিন্তু তার বেশি করবেন না। অর্থাৎ, আপনার সেটের RAM যদি 512MB হয় তাহলে আপনি 512MB / 1GB RAM বাড়াতে পারবেন। তবে সমান সমান করাই ভাল।

ধাপ-২:
Swappiness লেখার উপর ক্লিক করলে যে বক্স আসবে সেখানে 50 লিখুন।

ধাপ-৩:
Min Free KB লেখায় ক্লিক করলে যে বক্সটা আসবে সেখানে 1 থেকে 20 যা ইচ্ছা দিন। তবে 20 এর বেশি দিলে সেট মাঝে মাঝে স্লো হয়ে যেতে পারে।
এবার অ্যাপটির উপরে Swap active লেখায় টিক দিলে Swap File Create করা শুরু হবে, তাই কিছুক্ষন অপেক্ষা করুন।

কাজ শেষ হলে আপনার SD Card এর স্পিড দেখাবে। Swap File তৈরির আগে অ্যাপটির Settings এর SD Card Directory তে গিয়ে Swap File কোথায় তৈরি হবে তা নির্ধারন করে দিতে পারেন, না করলে অ্যাপটিনিজেই Directory তৈরি করে নিবে স্বয়ংক্রিয় ভাবে।
যাই হোক, Close করে বের হয়ে যান। এখন Notify Icon ও Autorun অপশন দুটিতে টিক চিহ্ন দেন। কাজ শেষ।

তবে সেট ডাটা কেবল দিয়ে পিসিতে কানেক্ট করলে Swap RAM বন্ধ হয়ে যাবে, তাই প্রতিবার পিসি থেকে সেট ডিসকানেকট করার পর RAM Expender Open করে Swap Active লেখায় টিক চিহ্ন দিয়ে Swap RAM চালু করে নিতে হবে।

অ্যাপটি Open করলে,অ্যাপটির নিচের দিকে গ্রাফ আকারে RAM Status দেখাবে। আপনার সেটের অরিজিনাল RAM কত আর কতটুকু খালি আছে।Swap RAM কত আর কতটুকু খালি আছে । সবশেষে মোট RAM কত হয়েছে আর কতটুকুই বা খালি আছে।

তবে Class 8/10 Memory Card ছাড়া RAM বাড়ানো যাবে না, আর বাড়িয়ে ওতেমন কোন লাভ হবে না। আশা করি বুঝতে পেরেছেন। ধন্যবাদ, ভালো থাকবেন।

জেনে নিন আনার বা ডালিম ( Pomegranate ) এর ১০ টি উপকারিতা



আনার খুবই পরিচিত একটি ফল। অনেকে একে বেদানা বা ডালিমও বলে থাকেন। রূপকথার গল্পে এই ফলকে যৌবন ও সৌভাগ্যের প্রতীক হিসাবে উপস্থাপণ করা হত। আনারের আদি নিবাস পারস্যে। পারস্য থেকেই ফলটি আমেরিকা, ভারত, বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে। অদ্ভুত সুন্দর দেখতে এই ফলটি খেতে যেমন সুস্বাদু, তেমনি এর উপকারিতাও অনেক। শরীর সুস্থ রাখার পাশাপাশি জীবনের সজীবতা ধরে রাখতে এর ভূমিকা অতুলনীয়। তাই চলুন কথা না বাড়িয়ে আনারের উপকারী দিকগুলো সম্পর্কে জেনে নেই–

১। হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়:
মাত্র এক গ্রাম আনারের জুসে যথেষ্ট পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পাওয়া যায়। এটি রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমিয়ে হার্টকে ঝুঁকিমুক্ত রাখে। ফলে হৃদরোগের সম্ভাবনা হ্রাস পায়।

২। ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়ক:
বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, আনারের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ক্যান্সার সেল তৈরী ও বেড়ে ওঠাকে বাধা দান করে। ফলে ক্যান্সার প্রতিরোধে আনার বেশ কার্যকর।

৩। হজমে সহায়তা করে:
আনার খেলে পাকস্থলী ও খাদ্যনালীর পরিপাক ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। ফলে হজমের জন্যও আনার বেশ উপকারী।

৪। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিকরে:
আনারে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘এ’ ও ‘সি’ রয়েছে। এই দুইটি ভিটামিন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে অত্যন্ত সহায়ক।

৫। স্ট্রেস বা মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করে:
গবেষণায় দেখা গেছে, যারা প্রতিদিন কিছু পরিমাণে আনার খায় তারা অন্যদের তুলনায় কম স্ট্রেস বা মানসিক চাপে ভোগেন। চিন্তামুক্ত থাকতে তাই নিয়মিত আনার খেতে পারেন।

৬। শরীরে সজীবতা ধরে রাখে:
আনারের শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট দেহের সজীবতা ধরে রাখে। এছাড়া আনার দেহকে বিভিন্ন ধরনের জীবাণু সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে।

৭। কোষের পুনরুজ্জীবন:
আনারে পর্যাপ্ত ফ্যটি আসিড রয়েছে। সেই সাথে রয়েছে ক্যারাটিন বজায় রাখার গুণাগুণ। এই কারনে কোষের পুনরুজ্জীবনের সাথে সাথে ত্বকে বয়সের ছাপও কম পড়ে।

৮। কোলাজেন গঠনে সহায়ক:
ত্বকেরএকটি স্তর ডার্মিস, যা ফাইবার বা আঁশ দিয়ে তৈরী। ডার্মিসকে ঠিক রাখে কোলাজেন, যার জন্য দরকার প্রোটিন ও ভিটামিন সি। আনার কোলাজেন ফাইবারকে ঠিক রেখে অ্যান্টিএজিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করে। অর্থাৎ অকালে বুড়িয়ে যাওয়া প্রতিরোধ করে।

৯। ত্বকের সজীবতা ধরে রাখতে সাহায্য করে:
আনারের জুস ত্বকের যত্নে দারুণ উপকারী। এটা ত্বকের গভীরে ঢুকে পানি সরবরাহ নিশ্চিত করে। এছাড়া মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট ও সাইটো কেমিক্যাল উপাদানের যোগান দেয়। ত্বকের সজীবতা ধরে রাখতে এগুলো খুবই দরকারী।

১০। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে:
আনারে রয়েছে বিশেষ ধরনের ফাইবার তাই
নিয়মিত আনার খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।
এজন্য নিয়মিত আনার খান সুস্থ থাকুন।


জেনে নিন উচ্চতা অনুযায়ী আপনার ওজন ( BMI ) ঠিক আছে কি না




কেমন আছেন সবাই? নিশ্চয় ভালো আছেন। আজকে হাজির হলাম বিশেষ এই পোস্টটি নিয়ে। আমাদের মাঝে অনেকে আছেন যারা শরীরের ওজন অনেক বেশী করে ফেলেছেন। হয়ত জানেননা যে উচ্চতা অনুযায়ী বয়স কত হওয়া উচিত। তাই আজকে হাজির হলাম এই বিষয়ে আপনাদের কিছু উপহার দিতে।
এই বিষয়টি সবারই জানা দরকার। বিশেষ করে যারা অনেক মোটা তাদেরতো অবশ্যই।

জেনে নিন উচ্চতা অনুযায়ী আপনার ওজন কতো হওয়া দরকারঃ-

উচ্চতা - পুরুষ(কেজি) - নারী(কেজি)
►৪’৭” —— ৩৯ - ৪৯ —– ৩৬ - ৪৬
►৪’৮” —— ৪১-৫০ —– ৩৮-৪৮
►৪’৯” —— ৪২-৫২ —– ৩৯–৫০
►৪’১০” — — ৪৪-৫৪ —– ৪১–৫২
►৪’১১” —— ৪৫-৫৬ —– ৪২-৫৩
►৫ফিট —— ৪৭-৫৮ —– ৪৩-৫৫
►৫’১” —— ৪৮-৬০ — – ৪৫-৫৭
►৫’২” —— ৫০-৬২ — – ৪৬-৫৯
►৫’৩” —— ৫১-৬৪ —– ৪৮-৬১
►৫’৪” —— ৫৩-৬৬ —– ৪৯-৬৩
►৫’৫” —— ৫৫-৬৮ —– ৫১-৬৫
►৫’৬” —— ৫৬-৭০ —– ৫৩-৬৭
►৫’৭” —— ৫৮-৭২ —– ৫৪-৬৯
► ৫’৮” —— ৬০-৭৪ —– ৫৬-৭১
► ৫’৯” —— ৬২-৭৬ —– ৫৭-৭১
►৫’১০” —— ৬৪-৭৯ — – ৫৯-৭৫
►৫’১১” —— ৬৫-৮১ —– ৬১-৭৭
►৬ ফিট —— ৬৭-৮৩ —– ৬৩-৮০
►৬’১” —— ৬৯-৮৬ — – ৬৫-৮২
►৬’২” —— ৭১-৮৮ —– ৬৭-৮৪

হিসাব করে নিন উচ্চতা অনুযায়ী আপনার ওজন ঠিক আছে কি না ?
আজকের মত ভালো থাকুন - সুস্থ থাকুন, ধন্যবাদ !!