কিভাবে আপনার বাসা থেকে টিকটিকি তাড়াবেন





আমাদের খুব পরিচিত একটি প্রাণীর নাম হচ্ছে ‘টিকটিকি’। প্রায় সব বাসাতে এটি দেখতে পাওয়া যায়। ঘরের সব স্থানে এর অবাধ বিচরণ। এটি আপনার প্রত্যক্ষভাবে কোন ক্ষতি না করলেও পরোক্ষ ভাবে ক্ষতি করে থাকে। এর মল মূত্র বিষাক্ত এবং তা কোনোভাবে আমাদের খাবারের সাথে মিশে গেলে ডায়রিয়া কিংবা পেটের অসুখ হতে পারে।
এছাড়া এর উপস্থিতি বিরক্তি আর অস্বস্তি ছাড়া আর কিছুই দেয় না।
তাই বিরক্তিকর এই প্রাণীটিকে ঘর থেকে চিরতরে বিদায় করার সহজ কিছু উপায় নিয়ে আজকে আপনাদের সামনে হাজির হলাম।

১। ডিমের খোসা: টিকটিকি দূর করার সহজ এবং কার্যকরী একটি উপায় হল ডিমের খোসা। টিকটিকি ডিমের গন্ধ পছন্দ করে না। এর গন্ধ তাকে মানসিকভাব দূর্বল করে দেয়। টিকটিকি আসার জায়গাগুলোতে ডিমের খোসা রেখে দিন।দেখবেন টিকটিকি আসা বন্ধ হয়ে গেছে। কিছুদিন পর পর ডিমের খোসা পরিবর্তন করুন।

২। ন্যাপথালিন: কাপড় পোকার হাত থেকে রক্ষা করার জন্য ন্যাপথালিন ব্যবহার করা হয়। এই ন্যাপথালিন দূর করে দিবে ঘরের টিকটিকি! টিকটিকি আসার স্থানগুলোতে ন্যাপথালিন রেখে দিন। এটি ঘরে টিকটিক আসা বন্ধ করে দিবে। শুধু টিকটিকি নয় সাথে আরও কিছু পোকা আসাও বন্ধ হবে।

৩। রসুন: একটি বড় রসুনের কোয়া কুচি করে পানিতে মিশিয়ে নিন। এবার এটি স্প্রে বোতলে ভরে ফেলুন। টিকটিকির উপর স্প্রে করুন এই পানিটি। অথবা ঘরে যেসব স্থানে টিকটিকি আসা যাওয়া করে সেসব স্থানে রসুনের কোয়া রেখে দিন। এমনকি রসুনের খোসাও রেখে দিতে পারেন।

৪। ঠান্ডা পানি: টিকটিকি শীতল রক্তের প্রাণী। টিকটিকি দেখলেই বরফপানি স্প্রে করে দিন। বরফ ঠাণ্ডা পানির ফলে টিকটিকির শরীর অনেক বেশী ঠাণ্ডা হয়ে যায় যার কারণে টিকটিকি নড়াচড়া করতে পারে না। আর তখন একটি বক্সের ভেতরে ঢুকিয়ে বাইরে ফেলে দিন।

৫। ময়ূরের পালক: কোন এক অদ্ভুত কারণে টিকটিকি ময়ূরের পালক ভয় পায়। ঘরের ফুলদানিতে কয়েকটি ময়ূরের পালক রেখে দিন। কিংবা ঘরের দেয়ালে কয়েকটি পালক লাগিয়ে রাখতে পারেন। এটি ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করার সাথে সাথে টিকটিকিকে দূর করে দিবে।

ঘর থেকে টিকটিকি দূর করুন, সুস্থ থাকুন ভালো থাকুন।