কিভাবে পায়ের পাতার দুর্গন্ধ দূর করবেন






কর্মক্ষেত্র থেকে শুরু করে স্কুল কলেজ সর্বত্রই অনেকে অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে পড়েন পায়ের গন্ধের জন্য ৷ পা-ঢাকা জুতো অর্থাৎ সু পড়ে কিছু বিশেষ জায়গায় যেতেই হয় আমাদেরকে ৷ আর সেখানেই বাঁধে সমস্যাটা ৷ এই জুতোর গন্ধে অনেকেই কাছে ঘেসতে চায়না ৷ আর এই পরিস্থিতি লজ্জারও কারণ হয়ে দাঁড়ায়৷ মূলত যাঁদের পা ঘামে তারাই বেশি এই সমস্যার মুখোমুখি হয়।
কিন্তু এর থেকে আমরা মুক্তি পেতে পারি সহজেই ৷ আসুন জেনে নেই পায়ের পাতার গন্ধ দূর করার কিছু কৌশল -



১. মোজা পড়ুন : জুতো পড়ার সময় অবশ্যই মোজা ব্যবহার করবেন। কারণ পাতলা সুতির মোজা পায়ের সঙ্গে আটকে থাকে এবং তা পায়ের পাতার ঘাম শুষে নেয়। ফলে পায়ে জীবাণু বাসা বাঁধতে পারে না। সিনথেটিকের বা উলের মোজাও ঘাম-রোধক ৷ তবে এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে যে প্রতিদিন একই মোজা ব্যবহার করা উচিত নয়৷ প্রতিদিন অন্তত একবার মোজা পরিবর্তন করতে হবে।

২. টি ব্যাগ ব্যবহার : পায়ের পাতায় ঘাম হওয়া থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য চা-পাতা ব্যবহার করতে পারেন। ফুটানো চা-পাতা দিয়ে প্রতিদিন ২০ মিনিট করে পা ভিজিয়ে রাখুন৷ এতে আপনার পা ঘামার পরিমাণ কমে যাবে। তাছাড়া ফুটানো চা-পাতার অ্যাসিড জীবাণুনাশক হিসেবেও কাজ করে এবং পায়ের খোলা লোম কূপগুলিকে বন্ধ করে দেয়।

৩. জীবাণুনাশক ব্যবহার:
প্রতিদিন একবার হলেও অ্যান্টিফ্যাঙ্গাল ফুট স্প্রে ব্যবহার করলে পায়ে দুর্গন্ধ হওয়ার সমস্যা কমবে। আপনি স্প্রে করতে না চাইলে অ্যান্টিফ্যাঙ্গাল পাউডারও ব্যবহার করতে পারেন। পায়ে অ্যান্টিফাঙ্গাল স্প্রে করে বা পাউডার দিয়ে তারপরে মোজা পড়ে নিতে হবে। এতে পায়ে জীবাণুর সংক্রমণ কম হয়। ফলে দুর্গন্ধও হয় না।

৪. জুতা পরিবর্তন : একই জুতা প্রতিদিন পড়লে জুতায় লেগে থাকা ঘাম শুকনোর সময় পায় না। সেই জুতা আবার পড়লে জীবাণু বাসা বাঁধে পায়ে। তার থেকেই দুর্গন্ধ সৃষ্টি হয়। তাই অন্তত দুই জোড়া জুতা রাখুন। একদিন এক জোড়া পড়লে অন্য দিন অন্য জোড়া জুতো পড়ুন।

৫. পায়ের পাতা শুকান : যতটা সম্ভব পায়ের পাতা খোলা হাওয়ায় রাখুন৷ তাই সময় পেলে অফিসে কাজের ফাঁকে বা গাড়িতে যাওয়ার সময় জুতা খুলে রাখতে পারেন৷ এতে পায়ের পাতা অক্সিজেনের সংস্পর্শে থাকে যা ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধিতে বাধা দেয়। তাই দুর্গন্ধও হয় না।

নিয়ম মেনে চলুন, সুস্থ থাকুন।