বিজয়ের মাস

জেনে নিন স্পিরুলিনার স্বাস্থ্যগুণ ও উপকারী দিক





স্পিরুলিনা এক প্রকার জলজ উদ্ভিদ যা সায়ানো ব্যাক্টেরিয়া নামে পরিচিত। দেখতে লতা পাতার মতো হলেও এর রয়েছে চমৎকার স্বাস্থ্য উপকারিতা যা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবীদার ৷ নিচে এর উপকারী দিকগুলো তুলে ধরলাম ৷

১. স্তন ক্যান্সারঃ স্পিরুলিনা ক্যান্সার হওয়া থেকে শরীরকে রক্ষা করে। স্পিরুলিনার নীল-সবুজ রঙ এটা ক্যান্সারের কোষ ধ্বংস করতে সক্ষম হয়।স্পিরুলিনা শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট "সেলেনিয়াম" সমৃদ্ধ। গবেষণায় দেখা গেছে স্পিরুলিনা স্তন ক্যান্সার চিকিৎসায় সফলভাবে কার্যকরী হয়েছে।


২. বাত প্রতিরোধঃ স্পিরুলিনা প্রকৃতি বিরোধী প্রদাহ এবং বাত রোগীদের জন্য অত্যন্ত উপকারী। এর অতিরিক্ত পুষ্টি পেতে রস, পাস্তা, সালাদ, রুটি আকারে আপনার খাদ্যের সাথে মিশিয়ে খেতে পারেন যা আপনাকে দেবে বাড়তি স্বাদ ও পুষ্টি ৷

৩.যকৃতের রোগঃ স্পিরুলিনা যকৃতের ক্ষতি, যকৃত ব্যর্থতা এবং সিরোসিস এর বিরুদ্ধে কাজ করে শরীরকে রক্ষা করে।এটা ভিটামিন বি, ই, ম্যাঙ্গানিজ দস্তা, লোহা, তামা, সেলেনিয়াম, এবং প্রোটিনের মত খনিজ সমৃদ্ধ উৎস। এছাড়া এটা যকৃতের ব্যথা হ্রাস করে এবং যকৃতে ট্রাইগ্লিসেরাইড এর ক্ষতি এড়িয়ে যেতে সক্ষম।

৪. চোখের সমস্যাঃ স্পিরুলিনা যে কোন ধরণের ক্ষতি থেকে চোখকে রক্ষা করে। যা ম্যাঙ্গানিজের উত্তম উৎস উচ্চ পরিমাণে দশ গুণ বেশি ভিটামিন রয়েছে।এটি ছানির পতন এবং মাচুলার মত চক্ষু রোগ ভাল করে শক্তিশালী এবং পুষ্টিকর করে তোলে।

৫. হজমশক্তি বৃদ্ধিঃ এটি কোলাই এবং চান্দিদার মত ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি দমন করে । স্পিরুলিনা পাচনতন্ত্র এর মধ্যে lactobacillus এবং bifidobacteria মত ভাল ব্যাকটেরিয়া তৈরী করে। তাই এটা পুষ্টি শোষণ করে শরীরের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে হজম শক্তি বাড়ায়।

৬. কিডনি সমস্যাঃ স্পিরুলিনার ক্লোরোফিল একটি উচ্চ ঘনত্ব সম্পন্ন এবং সেরা প্রাকৃতিক detoxifiers। এটা কিডনি থেকে ভারী ধাতু, ক্ষতিকারক রশ্মি, এবং দূষণকারী পদার্থ মুছে নিয়ে কিডনিকে বিষাক্ততার হাত থেকে বাঁচায় ৷

৭. এলার্জিঃ গবেষণায় দেখা গেছে যারা প্রায় ৬ মাস ধরে দৈনিক স্পিরুলিনা গ্রহণ করেছে তাদের এলার্জির উপসর্গ কমে গেছে ৷ ধুলোর অতি ক্ষুদ্র পরজীবী কীটবিশেষ, ছাঁচ, এবং পোষা প্রাণী, ফুলের পরাগ বা বহুবর্ষজীবী এলার্জি, এলার্জিক রাইনাইটিস (ঋতু) থেকে স্পিরুলিনার সাহায্যে স্বাভাবিকভাবেই সুস্থ থাকা যেতে পারে।

৮. ডায়াবেটিস প্রতিরোধঃ স্পিরুলিনার মধ্যে অ্যামিনো অ্যাসিড, ভিটামিন, খনিজ পদার্থ, এবং phycocyanins রয়েছে যা ডায়াবেটিস কমাতে সাহায্য করে ৷ এটি ডায়াবেটিকসের মধ্যে লিপিড মাত্রা উন্নত করতে সাহায্য করে। এতে linolenic অ্যাসিড রয়েছে যার ফলে ২ মাস দৈনিক দুইবার spirulina গ্রহণ করে রক্তে শর্করার মাত্রা সুষম রাখা যায় ৷

৯. রোগপ্রতিরোধঃ স্পিরুলিনা একটি চমৎকার আক্রমণ বিরোধী সহায়তাকারী পদার্থ । স্পিরুলিনার মধ্যে পলিস্যাকারাইড উপস্থিতি যার ফলে রোগ এর বিভিন্ন বাধা, ইমিউন সিস্টেম উন্নত করার জন্য সুনাম রয়েছে।

১০.ওজন কমাতেঃ স্পিরুলিনাতে বিশেষ ধরনের প্রোটিন আছে যা ক্ষুধা কম রাখে এবং শরীরের স্তূপাকার চর্বিকে নিরাময় করে। তাই এটা ব্যায়ামকারীর জন্য মিলিত কোন ওজন কমানোর খাদ্যের মধ্যে একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ খাবার।

১১. মেনোপজঃ কয়েক মাসের জন্য দৈনিক একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ স্পিরুলিনা গ্রহণ দুঃসহ স্মৃতিচারণায়, বিষণ্নতা ও উদ্বেগ এর মত মেনোপজ উপসর্গ কমিয়ে দেয়। মেনোপজ চলছে এমন নারী স্পিরুলিনা নেওয়ার পর মানসিক প্রশান্তি লাভ এবং মানসিক ভারসাম্য ঠিক হবে নিশ্চিত।

১২. ক্ষত নিরাময়ঃ স্পিরুলিনা ব্যাকটেরিয়া, খামির এবং ছত্রাক বৃদ্ধি inhibiting দ্বারা ক্ষত নিরাময়কারী একটি নিখুঁত প্রাকৃতিক প্রতিকার যার জৈব প্রদাহ বিরোধী বৈশিষ্ট্য আছে।

১৩. স্বাস্থ্য বাড়াতেঃ বাচ্চার স্বাস্থ্যের উন্নয়নে স্পিরুলিনা পুষ্টিতে পরিপূর্ণ৷ এটা সন্তানদেরকে স্তন্যদান করতে অত্যন্ত সহায়ক। স্পিরুলিনায় linolenic অ্যাসিড রয়েছে এবং আপনার বাচ্চার সুস্থ বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজন।

১৪. অ্যালজাইমার প্রতিরোধঃ অ্যালজাইমার রোগ এর কারণে প্লেক মেমরি ক্ষতি হচ্ছে, যাতে amyloid-বিটা প্রোটিনের পরিমাণ বেড়ে থাকে।স্পিরুলিনা সেবনে এই প্রোটিন মাত্রা হ্রাস করা যায় এবং এই স্মৃতিবিলোপ রোগ থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করে।

১৫. রক্ত স্বল্পতাঃ আয়রনের অভাব বিশেষ করে নারী ও শিশুদের মধ্যে খুবই সাধারণ ও তা ব্যাপক আকারের।স্পিরুলিনা আয়রনের সেরা প্রাকৃতিক সূত্র। এটি ভিটামিন বি এবং হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়িয়ে সফলভাবে রক্তাল্পতা থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে।

১৬. ক্ষুধা হ্রাসঃ স্পিরুলিনা আপনার শরীরকে পূর্ণাঙ্গ করে তোলে এবং সেই সাথে ক্ষুধা হ্রাস করে। খাবার আধা ঘন্টা আগে যদি কেউ স্পিরুলিনা গ্রহণ করে তাহলে দেখবেন স্বাভাবিক ভাবেই তিনি কম খাচ্ছেন।

বাজারে অনেক ঔষধ পাওয়া যায় যা স্পিরুলিনার মাধ্যমে প্রস্তুত করা হয় ৷ বিভিন্ন কোম্পানি বিভিন্ন নামে বাজারে ছেড়েছে ৷ এর মধ্যে Navit উল্লেখযোগ্য ৷