সন্তানের জন্য বাবার দেওয়া সেরা উপদেশ



কয়েকদিন আগে ফেসবুকে স্ট্যাটাস পড়ছিলাম ৷ হঠাৎ করে নজরে আসলো সন্তানকে দেওয়া বাবার সেরা উপদেশ ৷ তাই কৌতুহল বশত পুরোটা পড়লাম ৷ পড়ার পর মনে হলো একজন বাবা হিসেবে নিজের সন্তানকে দেওয়া পৃথিবীর সেরা উপহার এটা ৷ এর থেকে আর বড় কোন উপহার হতে পারে না ৷ ধন সম্পদ দিয়ে গেলে কখনো তা সন্তানকে সুপথে চালিত করতে পারে না ৷ কিন্তু এই উপদেশ নিজের সন্তানকে দিয়ে গেলে তারা সৎপথে চালিত হওয়ার প্রেরণা পাবে আশা করা যায় ৷ যাই হোক বাবার দেওয়া সেরা উপহার কপি করে আপনাদের সামনে তুলে ধরলাম ৷

১) কখনও কাউকে ছোট করে দেখবে না, নইলে তুমি নিজেই ছোট হয়ে যাবে।

২) জুতা সেলাই করতে গিয়ে কখনো নিজের পা বাড়িয়ে দিও না, বরং জুতোটা নিজে একবার মুছে দিও। আর জুতা কিনতে গেলে নিজের হাতেই জুতো পায়ে দিয়ে ফিটিং দেখো।

৩) কখনও কামলা, কাজের লোক, বুয়া বলে ডেকো না। মনে রেখো তারাও কারও না কারও ভাই, বোন, মা বাবা। তাদের ভাই - আপা বলে ডেকো।

৪) পড়াশুনা করে জীবনে উন্নতি করো কিন্তু কারও ঘাড়ে পা দিয়ে কখনো উপরে উঠার চেষ্টা করো না।

৫) কাওকে সাহায্য করে পিছনে ফিরে চেয়ো না, সে লজ্জা পেতে পারে।

৬) সব সময় দেয়ার চেষ্টা করবে। মনে রাখবে প্রদানকারীর হাত সর্বদা উপরেই থাকে।

৭) এমন কিছু কাজ করো না যার জন্য তোমার এবং তোমার পরিবারের উপর লোকে আঙুল তুলে ।

৮) মানুষ হয়ে জন্ম নিয়েছো, তাই মানুষের প্রতি তোমার দায়িত্ব ও কর্তব্য কখনো এড়িয়ে যেও না।

৯) তোমার মধ্যে কি আছে তা তোমার গায়ে লিখা নেই, কিন্তু তোমার ব্যবহারে আছে। এটা সবসময় মনে রেখো ৷

১০) সকল ভাল কাজে সবার আগে এগিয়ে যাবে, তাহলেই মানুষের ভালোবাসা পাবে ৷

১১) যখন রাস্তায় হাঁটবে তখন দেখে হাঁটবে, কেউ পড়ে গেলো কি না?

১২) কারও বাসায় দাওয়াত খেতে গেলেও বাসায় এক মুঠো ভাত খেয়ে যাবে। যাতে কারও বাড়ির ভাতের অপেক্ষায় থাকতে না হয়।

১৩) কারও বাসার খাবার নিয়ে কখনো  সমালোচনা করবে না, কেননা কেউ কখনো খাবার খারাপ বা অস্বাদ করার চেষ্টা করেনা।

১৪) বড়দের মাঝে তোমার চেয়ারটা বরাদ্দ নেই, আছে ছোটদের মাঝে।

১৫) বড় হবার নয়, মানুষ হবার চেষ্টা করবে ৷ তবেই তুমি বড় হতে পারবে ৷

১৬) সব জায়গায় যথাসময়ে উপস্থিত থাকবে, মনে রাখবে সময়মতো উপস্থিত থাকা উত্তম মানুষের বৈশিষ্ট্য ৷

১৭)তোমার কাজকে সব সময় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেবে, তাহলে তুমি অন্যের কাছে গুরুত্বহীন হবে না।

১৮) বাইক বা গাড়ি কখনও জোরে চালাইও না, তাতে তোমার কলিজার কাপুনি হয়তো না বেড়ে যেতে পারে, কিন্তু  রাস্তার পাশে থাকা মানুষটার কাপুনি বেড়ে যেতে পারে।